...::: অধ্যক্ষের বাণী :::...



একবিংশ শতাব্দীর সূচনা লগ্নে জ্ঞান-বিজ্ঞানের স্রোতধারায় উন্নত জাতি হিসেবে বিশ্ব আসনে সমাসীন হবার প্রধান অবলম্বন হল সু-শিক্ষিত মানব সম্পদ। যে কোন দেশের এ মহা মূল্যবান মানব সম্পদের উন্নয়নে সন্দেহাতীতভাবে অগ্রণী ভূমিকা পালন করে সে দেশের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও শিক্ষক সমাজ। তাই এ এলাকার উন্নত মানব সম্পদ গড়ার লক্ষ্যে ও শিক্ষার আলো সাধারন জনগনের দোরগোড়ায় পৌছিয়েঁ দেবার নিমিত্তে ১৯৬৫ সালে জন্ম হয়েছিল এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির।



এ কলেজে রয়েছে কর্মতৎপর, বিদ্যানুরাগী ও অভিজ্ঞ শিক্ষক-শিক্ষিকা মন্ডলী এবং আধুনিক শিক্ষার সকল সুযোগ সুবিধা। এই মহাবিদ্যালয়টি সম্পূর্ণভাবে শহরের যানজট ও কোলাহল মুক্ত মনোরম প্রাকৃতিক পরিবেশে অবস্থিত রাজনীতি বিবর্জিত একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ১৯৬৫-১৯৬৬ শিক্ষাবর্ষ হতে শুরু হয়েছে তার পদযাত্রা। উন্মোচিত হয়েছে জ্ঞানের এক নতুন দিগন্ত। এখানে আছে উচ্চ শিক্ষার প্রাথমিক সোপান-উচ্চ মাধ্যমিক স্তর। এই স্তরে আছে বিজ্ঞান, মানবিক ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা সহ সহ-শিক্ষা কার্যক্রমের বিশেষ সুবিধা। পছন্দ মত যেকোন একটি বিভাগ বেছে নিয়ে আপনার সন্তান গড়ে নিবে তার প্রস্ফুটিত সুন্দর ভবিষ্যৎ।



বাস্তব উপযোগিতার প্রতি গুরুত্বারোপ করে কলেজটি প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বিধায়, এই কলেজের সামগ্রিক শিক্ষার পরিবেশ প্রতিযোগিতা মূলক ও উন্নয়ন ধর্মী। এ কলেজ পরিচালনার মূলমন্ত্র হল অবিরাম প্রচেষ্টার মাধ্যমে তাত্ত্বিক ও ব্যবহারিক জ্ঞানের উৎকর্ষ সাধন করে একে একটি আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে রূপান্তর করা।



আমাদের দেশের বিদ্যমান পরিস্থিতিতে “পাবনা সরকারি মহিলা কলেজ” শিক্ষা ব্যবস্থার সামগ্রিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখতে প্রত্যাশী। আদর্শ ও উদ্দেশ্যের সম্মিলনে সমাজের সকলের সহযোগীতাই আমাদের কাম্য। আমাদের এই প্রতিষ্ঠানের সর্বাঙ্গীন উন্নতি ও ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা রূপায়নে গঠনমূলক সমালোচনা সহ সুশীল সমাজের সকল মহলের মূল্যবান পরামর্শ এবং সহযোগিতা একান্তভাবেই প্রত্যাশা করছি।